শনিবার ২ মার্চ ২০২৪
ডাস্ট অ্যালার্জি থেকে বাঁচার উপায়
স্বদেশ ডেস্ক:
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর, ২০২৩, ২:৪০ পিএম
আমাদের চির চেনা সমস্যাগুলোর মধ্যে ডাস্ট অ্যালার্জি  অন্যতম। তবে, শীত এলেই ডাস্ট অ্যালার্জির আতঙ্ক বেড়ে যায়। ধুলোবালির কারণে ডাস্ট অ্যালার্জির সমস্যা অনেকেই ভুগে থাকেন। তবে, ডাস্ট অ্যালার্জি কেবল ধুলোর কারণেই হয়, তা নয়। বিভিন্ন কারণেই এ সমস্যা হতে পারে। অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী বস্তু বা অ্যালার্জেন (allergen) আমাদের চতুর্দিকে ছড়িয়ে আছে। গৃহস্থালির ধুলাবালি, বিভিন্ন ফুলের রেণু, পশুর লোম ইত্যাদি পরিচিত বস্তুগুলি অ্যালার্জেনের উদাহরণ। এছাড়া তেলাপোকা থেকে নির্গত ক্ষতিকর অ্যালার্জেনও (ব্যাকটেরিয়া) অ্যালার্জি সৃষ্টি করে। কুকুর, বিড়ালের মতো পোষা প্রাণীর চুল ও খুশকিতেও ডাস্ট অ্যালার্জি হয়।

ডাস্ট অ্যালার্জির লক্ষণ হিসেবে হাঁচি-কাশি, চোখ-নাক থেকে অনবরত পানি পড়া, ত্বকে চুলকানি, লালচে ভাব, ব়্যাশ এবং শ্বাসকষ্ট দেখা দিতে পারে। এছাড়াও ক্লান্তি ও দুর্বলতা, চোখ ফুলে যাওয়া,চোখের নিচে কালো দাগ, কান বন্ধ, গন্ধ হ্রাস ও গলাব্যথা, মাথাব্যথা, চামড়ার ওপর ফুসকুড়ি ওঠা ইত্যাদি উপসর্গ হতে পারে।

আর এ সমস্যা সমাধানের জন্য হরহামেশাই ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হয়। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নানা ধরনের ওষুধ সেবন করে থাকেন। চাইলে ঘরোয়া উপায়েও ডাস্ট অ্যালার্জি থেকে মুক্তি পেতে পারেন। জেনে নিন ডাস্ট অ্যালার্জি রোধের ঘরোয়া দাওয়াই-

মধু

গবেষণা অনুযায়ী, মধু পরিবেশে উপস্থিত অ্যালার্জেনের সাথে শরীরকে খাপ খাওয়াতে সহায়তা করে। কেবলমাত্র এক চা চামচ মধুর সেবন, হাঁচি বা কাশির থেকে তাৎক্ষণিক স্বস্তি দিতে সক্ষম। মধুতে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য বর্তমান এবং আপনি অ্যালার্জির কারণে হওয়া ব়্যাশ কমাতেও এটি প্রয়োগ করতে পারেন।

প্রোবায়োটিক

ডাস্ট অ্যালার্জি প্রতিরোধের ক্ষেত্রে প্রোবায়োটিক অত্যন্ত উপকারি। অ্যালার্জি মূলত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ভারসাম্যহীনতার কারণে হয়ে থাকে। অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার ভারসাম্যতা বজায় রাখতে এবং অ্যালার্জি থেকে মুক্তি পেতে, পর্যাপ্ত পরিমাণ উপকারি ব্যাকটেরিয়া গ্রহণ করুন। অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়া বাড়াতে দই খেতে পারেন, কারণ এতে প্রোবায়োটিক রয়েছে।

অ্যাপল সিডার ভিনেগার

ডাস্ট অ্যালার্জির ক্ষেত্রে আপেল সাইডার ভিনেগার অত্যন্ত উপকারি। এক গ্লাস পানিতে এক চা চামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার মিশিয়ে, দিনে দুই-তিনবার পান করুন। উপকার হাতেনাতে পাবেন।

স্টিম

ডাস্ট অ্যালার্জির চিকিৎসার ক্ষেত্রে অন্যতম উপায় হলো স্টিম নেওয়া। একটি বড় পাত্রে গরম পানি নিন এবং তার থেকে নির্গত বাষ্প নাক এবং মুখের সাহায্যে গ্রহণ করুন। এটা করার সময় মাথা টাওয়েল দিয়ে অবশ্যই ঢাকা রাখবেন। বর্তমানে বাজারে বিভিন্ন ধরনের স্টিম নেওয়ার যন্ত্র কিনতে পাওয়া যায়। কমপক্ষে ১০ মিনিট স্টিম নিন। এটি ন্যাসাল প্যাসেজ পরিষ্কার করে।

ঘি

ডাস্ট অ্যালার্জির চিকিৎসায় ঘি অত্যন্ত কার্যকর। আধ চা চামচ ঘি নিন, তাতে পরিমাণ মতো গুড়ও যোগ করতে পারেন। অনিয়ন্ত্রিত হাঁচি কমাতে ঘি চেটে খেতে পারেন। অ্যালার্জির আক্রমণ হলেই এটি প্রয়োগ করতে পারেন। ঘিতে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য বর্তমান, যা অনুনাসিক পথ পরিষ্কার করতে সাহায্য করে এবং ক্রমাগত হাঁচি থেকেও স্বস্তি দেয়।

অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরা জেল ডাস্ট অ্যালার্জির উপসর্গ হ্রাসের ক্ষেত্রে অ্যালোভেরা অত্যন্ত কার্যকর। ৩ থেকে ৪ টেবিল চামচ অ্যালোভেরার রস, দিনে দু’বার পান করুন। অ্যালোভেরাতে ব্যথানাশক এবং অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি বৈশিষ্ট্য বর্তমান, যা ডাস্ট অ্যালার্জির কারণে সৃষ্ট ব্যথা এবং ফোলাভাবের চিকিৎসার ক্ষেত্রে অত্যন্ত উপকারি।

সাইট্রাস ফল

সাইট্রাস ফল হল ভিটামিন সি-এর ভাণ্ডার। এই ভিটামিন শরীরে ইমিউনিটির উপর কাজ করে। ইমিউনিটি যেমন বাড়ে, তেমনই তা সঠিক পথে চালিত হয়। তাই এই খাবারটি খান ডাস্ট অ্যালার্জি থাকলে।

/এমএ/

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






● সর্বশেষ সংবাদ  
● সর্বাধিক পঠিত  
এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ  
অনুসরণ করুন
     
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : লুৎফর রহমান হিমেল
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: +৮৮০২-৮৮৩২৬৮৪-৬, মোবাইল: ০১৪০৪-৪৯৯৭৭২। ই-মেইল : e-mail: swadeshnewsbd24@gmail.com, info@swadeshpratidin.com
● স্বদেশ প্রতিদিন   ● বিজ্ঞাপন   ● সার্কুলেশন   ● শর্তাবলি ও নীতিমালা   ● গোপনীয়তা নীতি   ● যোগাযোগ
🔝