বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৪ আশ্বিন ১৪২৯

হাঁটুর সার্জারিতে রোবোটিক্স : ডাঃ কুনাল পাটেল
স্বদেশ ডেস্ক
প্রকাশ: বুধবার, ২৯ জুন, ২০২২, ৪:২৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ডাঃ কুনাল পাটেল

ডাঃ কুনাল পাটেল

ডাঃ কুনাল পাটেল সম্পর্কে:
ডাঃ কুনাল পাটেল এমবিবিএস, এমএস (অর্থো), এমসিএইচ, এফআইজেআর, এফআইএএস— এ্যাপোলো হসপিটালস গ্রুপ-এর প্রথম এবং ফ্ল্যাগশিপ হাসপাতাল, এ্যাপোলো হসপিটালস চেন্নাইয়ের সিনিয়র কনসালট্যান্ট অর্থোপেডিক সার্জন। উপমহাদেশে প্রথমবারের মতো ‘ম্যাকো রোবোটিক্স’ নিয়ে এসেছে এ্যাপোলো হসপিটালস চেন্নাই। আর এখন রোবোটিক্স নিয়ে আলোচনা করতে আমাদের সাথে আছেন ডাঃ কুনাল। 

প্রশ্ন: হিপ এবং হাঁটু রিপ্লেসমেন্টের ক্ষেত্রে রোবোটিক্স কেন?  
উত্তর: যদিও গত তিন দশক ধরে প্রচলিত হাঁটু বা হিপ রিপ্লেসমেন্ট সার্জারি রোগীদের জীবনকে কার্যকরভাবে উন্নত করছে, এই ‘ম্যাকো সিস্টেম’ সার্জারিকে প্রায় ১০০% নিখুঁত করতে সাহায্য করবে। যুক্তি অনু্যায়ী এবং আমাদের অভিজ্ঞতা অনুসারে, এই সিস্টেমে রোগীদের মধ্যে দারুণ সব সুবিধা দেখা যায়, যেমন—  সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনার মাধ্যমে হাড় কাটা, হাড় এবং নরম টিস্যু সংরক্ষণ, পোস্ট-অপারেশানে কম ব্যথা, দ্রুত রিকভারি, দ্রুত হাসপাতাল থেকে রিলিজ পাওয়া এবং কম রক্তক্ষরণ। এই প্রযুক্তি জয়েন্ট রিপ্লেসমেন্ট সার্জারির পদ্ধতি আরও উন্নত করছে। আমি নিশ্চিত যে এমন একটি দিন আসবে, যখন এই প্রযুক্তিটি প্রতিটি অপারেটিং রুমে সেবার মাপকাঠি হয়ে দাঁড়াবে। ৷

প্রশ্ন: এটি কীভাবে কাজ করে?
উত্তর: প্রতিটি রোগীর হাড়ের অ্যানাটমি আলাদা, এবং আর্থ্রাইটিস রোগাক্রান্ত জয়েন্টকে আরও পরিবর্তন করে। হাঁটু বা হিপের সার্জারির ক্ষেত্রে, ‘ম্যাকো সিস্টেম’-এর সফটওয়্যার রোগীর সিটি স্ক্যানের উপর ভিত্তি করে রোগাক্রান্ত জয়েন্টের একটি থ্রিডি মডেল তৈরি করতে সহায়তা করে। তারপরে সফটওয়্যারটি প্রতিটি রোগীর জন্য তাদের রোগের নির্দিষ্ট অবস্থার উপর ভিত্তি করে একটি পার্সোনালাইজড ভার্চুয়াল সার্জিক্যাল প্ল্যান তৈরি করে। অপারেশন থিয়েটারে প্রবেশের আগেও এই পরিকল্পনা করা হয়, যা সবচেয়ে সঠিকভাবে হাড় কাটা এবং সারিবদ্ধভাবে ইমপ্ল্যান্ট সাজানোর সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করে। এই প্রযুক্তির মাধ্যমে সার্জারির সময় প্রয়োজনে সার্জন পরিকল্পনায় কিছু পরিবর্তন আনতে পারেন। এবং একবার প্ল্যান লক হয়ে গেলে, ম্যাকো রোবোটিক আর্ম-অ্যাসিস্টেড সার্জারি সিস্টেম অপারেশন থিয়েটারে হাড় কেটে ফেলার জন্য সার্জনকে সহায়তা করে।
অনন্য এই হ্যাপটিক প্রযুক্তি সার্জনকে তৈরি করা ভার্চুয়াল সীমানার মধ্যে থাকতে দেয়। যেহেতু রোবোটিক এই আর্মকে শারীরিকভাবে ভার্চুয়াল সীমানার বাইরে সরানো যায় না, তাই এটি নরম টিস্যু সংরক্ষণ করতে সক্ষম করে। এটি সবচেয়ে সঠিক হাড় কাটা, ইমপ্ল্যান্টের অবস্থান এবং নরম টিস্যুকে যে-কোনো আঘাত দেওয়া থেকে রক্ষা করে।

প্রশ্ন: ‘ম্যাকো রোবোটিক্স’ ব্যবহার করে কতোগুলো রোবোটিক সার্জারি করা হয়েছে?
উত্তর: সারা বিশ্বে প্রায় ৫০০,০০০টি সার্জারি এবং এই বিষয়ে ২৫০টিরও বেশি প্রকাশনা এবং পর্যালোচনা রয়েছে। এ্যাপোলো চেন্নাই— অর্থোপেডিক সার্ভিস-সহ ভারতের অগ্রগণ্য অর্থোপেডিক সেন্টার।

প্রশ্ন: হাঁটুর রোবোটিক সার্জারির জন্য আদর্শ রোগী কারা? 
উত্তর: সম্পূর্ণ হাঁটু প্রতিস্থাপন করতে হবে, এমন যে-কোনো রোগীই এই অপারেশনটি করিয়ে নিতে পারবেন। 

প্রশ্ন:  বাংলাদেশের রোগীদের নিয়ে আপনার অভিজ্ঞতা কেমন? 
উত্তর: হৃদয়ের খুব কাছের একটি দেশ বাংলাদেশ। এ্যাপোলো-তে আমরা বাংলাদেশের মানুষ এবং চিকিৎসকগোষ্ঠীর সাথে আমাদের সম্পর্ককে খুবই মূল্যবান বলে মনে করি। আমাদের সম্পর্ক সাড়ে তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে চলছে। আমার ধারণা ভারতের চেয়ে বাংলাদেশে আমার বেশি বন্ধু আছে। আমি আনন্দিত যে তাদেরকে আমরা এ্যাপোলো চেন্নাইয়ের উন্নত এবং সাশ্রয়ী মূল্যের সার্ভিস দিয়ে সাহায্য করতে পারছি। 

প্রশ্ন : রোবোটিক্স সার্জারি কি অনেক ব্যয়বহুল?
উত্তর: একদমই না।  সাধারণ সার্জারির তুলনায় ১০%-১৫% বেশি খরচ হতে পারে, তাও বাড়তি স্ক্যান এবং প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের কারণে। কিন্তু রোবোটিক্স সার্জারির নির্ভুলতা খরচের এই সামান্য তারতম্যকে ছাপিয়ে যায়।  

প্রশ্ন: শরীরের হাড়গুলোকে সুস্থ রাখার জন্য কোনো উপদেশ?
উত্তর: শুরুতেই বলতে হবে ডায়েটের কথা। শাক-সবজি খেতে হবে, চিনি কম খেতে হবে, তাজা ফল খেতে হবে, কার্বোনেটেড ড্রিঙ্কস খাওয়া যাবে না। এছাড়াও, খাবার রাখার জন্য প্লাস্টিকের ব্যাগ ব্যবহার করা যাবে না, কারণ এটি শরীরের পাশাপাশি হাড়ের জন্যও ক্ষতিকর। মেনোপজের সময় নারীদের প্রতি বছরে একবার ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়াম লেভেল চেক করানো উচিত। হাড় সুস্থ রাখার জন্য শরীরের জয়েন্টগুলোর খেয়াল রাখার প্রয়োজন। এর জন্য নিয়মিত এক্সারসাইজ করা জরুরি, যেমন– হাঁটাহাঁটি করা, যে-কোনো স্পোর্টসে অংশ নেওয়া।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: +৮৮০২-৮৮৩২৬৮৪-৬, মোবাইল: ০১৪০৪-৪৯৯৭৭২। ই-মেইল : e-mail: swadeshnewsbd24@gmail.com, info@swadeshpratidin.com
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।