বুধবার ২৮ জুলাই ২০২১ ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮

বর্ষায় শিশুকে সুরক্ষিত রাখবেন যেভাবে
লাইফস্টাইল ডেস্ক :
প্রকাশ: শুক্রবার, ২৫ জুন, ২০২১, ৮:২৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

সংগৃহীত ছবি

সংগৃহীত ছবি

গ্রীষ্মের তীব্র তাপদাহ শেষে স্বস্তি হিসেবে আসে বর্ষা। তবে এ স্বস্তিকে অস্বস্তি বানিয়ে দেয় বিভিন্ন রোগ-বালাই। বিশেষ করে বর্ষার শুরুতেই চারদিকে আবহাওয়া পরিবর্তন জনিত রোগ বালায় দেখা দিতে শুরু করে। বেড়ে যায় ঠান্ডাজনিত রোগ। সঙ্গে বাড়ে মশার প্রকোপ। 

ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়াসহ ফ্লু বা ভাইরাসজনিত রোগগুলো তো রয়েছে, সেই সঙ্গে মাংসপেশি ও জয়েন্টে ব্যথা ব্যাপক আকার ধারণ করে। এ ছাড়া বন্যাকবলিত এলাকায় বেড়ে যায় কলেরা ও ডায়রিয়ার মতো রোগ। এ সময় সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে থাকে শিশুরা।

বেশিরভাগ শিশুই বর্ষায় ঠান্ডায় ভোগে। এ ছাড়া অন্যান্য রোগ তো রয়েছেই। এ কারণে বর্ষায় শিশুর বিশেষ যত্নের প্রয়োজন। এ সময় শিশুর খাওয়া-দাওয়া থেকে শুরু করে গোসল ও পোশাক নির্বাচনের সময় অভিভাবকদের বিশেষ যত্নবান হতে হবে। ঘরোয়া উপায়ে শিশুর স্বাস্থ্য সুরক্ষায় প্রতিরোধ ব্যবস্থা নেয়া জরুরি। জেনে নিন বর্ষায় শিশুর সুরক্ষায় করণীয়-

১। বর্ষায় শিশুদের বিভিন্ন সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় ভিটামিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ খাবার রাখা জরুরি। ভিটামিন ও মিনারেলযুক্ত বিভিন্ন ফলমূল ও শাকসবজি রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়ক। দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় যাতে পরিমিত পরিমাণে ভিটামিন এ বি ও সি থাকে, সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

২। এ সময় শিশুকে বাইরের খাবার খাওয়াবেন না। কলেরা ও টাইফয়েডের জীবাণু খোলা খাবারে থাকতে পারে। তাই শিশুকে টাটকা ও গরম খাবার খাওয়ান। খাবার ঢেকে রাখুন।

৩। পানি ফুটিয়ে ঠান্ডা করে শিশুকে পান করাতে হবে। ছোট শিশুর দুধ বানানোর সময় ফুটানো পানি ব্যবহার করতে হবে। পানিবাহিত রোগগুলো থেকে বাঁচতে বিশুদ্ধ পানি পান করাতে হবে শিশুকে।

৪। ঘর শুকনো ও পরিষ্কার রাখতে হবে সবসময়। শিশুর ঘর যেন স্যাঁতস্যাঁতে না থাকে। ঘরে যাতে নিয়মিত আলো বাতাস প্রবেশ করে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৫। ঘরের চারপাশ পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে; যেন সেখানে মশার বসতি না হয়। বৃষ্টির সময় শিশুকে বাইরে বের হতে না দেওয়াই ভালো।

৬। বর্ষায় তাপমাত্রা ঠান্ডা থাকায় শিশুদের গোসলে অনীহা দেখা যায়। তবে নিয়মিত গোসল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দিনের সবচেয়ে উষ্ণ সময়ে বাচ্চাদের গোসল করাতে হবে। গোসলের জন্য হালকা গরম পানি ব্যবহার করতে হবে। গোসলের পানিতে কয়েক ফোঁটা স্যাভলন বা ডেটল এন্টিসেপটিক লিকুইড মিশিয়ে দিতে পারেন।

৭। শিশুদের পা সবসময় শুকনো রাখতে হবে। বর্ষায় ঘরের ভেতর সবার স্লিপার ব্যবহার করা উচিত। মশা থেকে অতিরিক্ত সুরক্ষার জন্য শিশুর পুরো শরীর ঢেকে থাকে; এমন পোশাক পরানো উচিত।

৮। এ সময় সুতির পোশাক পরাতে হবে শিশুকে। ঘুমানোর সময় শিশুকে মশারির মধ্যে রাখতে হবে। মশা নিরোধক স্প্রে বা ভালো মানের কয়েল ব্যবহার করতে হবে।

প্রতিরোধ ব্যবস্থাই শেষ কথা নয়। শিশুর ফ্লু সংক্রমণ সন্দেহ হলে অবিলম্বে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। বিশেষ করে করোনা মহামারির এ সময় ঠান্ডাজনিত রোগ একেবারেই অবহেলা করবেন না।

বর্ষায় সব জায়গা ভেজা থাকে। সাপ, কেঁচো, তেলাপোকাসহ বিভিন্ন পোকামাকড়ের উপদ্রব বাড়ে। এগুলো থেকে শিশুকে দূরে রাখতে হবে। মশার কামড় এ সময়ে বিপজ্জনক হতে পারে। মশারি ব্যবহারের পাশাপাশি রুমটাও যেন মশামুক্ত থাকে, সেদিকে নজর দিতে হবে।

স্বদেশ প্রতিদিন/এস

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন

প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ৯৮৫১৬২০, ৮৮৩২৬৪-৬, ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৯৮৯৩২৯৫। ই-মেইল : e-mail: [email protected], [email protected]
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।