বৃহস্পতিবার ৬ মে ২০২১ ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

রাজস্থানের জয়ে বড় অবদান মুস্তাফিজের
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশ: রোববার, ২ মে, ২০২১, ৯:০৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

সংগৃহীত ছবি।

সংগৃহীত ছবি।

আগের ম্যাচে বল হাতে বিবর্ণ ছিলেন বাংলাদেশি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে সে ম্যাচে ৩৭ রান দিয়ে মাত্র এক উইকেট পেয়েছিলেন। আজ রোববার কাটার-মাস্টার ছিলেন দারুণ উজ্জ্বল, তাই জিতেছে তাঁর দল।

আজ মুস্তাফিজের রাজস্থান রয়্যালস নিজেদের সপ্তম ম্যাচে জিতেছে ৫৫ রানে। প্রথমে ব্যাট করে রাজস্থান ২২০ রান করে, জবাবে হায়দরাবাদের ইনিংস থেমে যায় ১৬৫ রানে।

এই ম্যাচে রাজস্থানের জয়ে বড় অবদান ছিল মুস্তাফিজের। তিনি চার ওভার বল করে ২০ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন। এবারের আইপিএলে এটি মুস্তাফিজের সেরা পারফরম্যান্স।             

আইপিএলে এখন পর্যন্ত মুস্তাফিজ সাত ম্যাচ খেলেছেন। দুই ম্যাচ ছাড়া বাকি সবকটিতেই উইকেট পেয়েছেন তিনি। এখন পর্যন্ত মোট উইকেট পেয়েছেন আটটি। 

রাজস্থান রয়্যালসের এই পেসার নিজের দ্বিতীয় ম্যাচে চার ওভার বল করে দুই উইকেট নেন। আর ২৯ রান খরচ করেছেন। তৃতীয় ম্যাচে চেন্নাইয়ের বিপক্ষে এক উইকেট পান। এছাড়া কলকাতার বিপক্ষে এক উইকেট, মুম্বাইয়ের বিপক্ষে এক উইকেট, হায়দরাবাদের বিপক্ষে তিন উইকেট পান। আর চতুর্থ ম্যাচে বেঙ্গালুরুর বিপক্ষ এবং প্রথম ম্যাচে পাঞ্জাবের বিপক্ষে কোনো উইকেট পাননি তিনি। 

আইপিএলে এর আগে  দুটি দলে খেলেছিলেন মুস্তাফিজ। প্রথম আসরে খেলেছিলেন ২০১৬ সালে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে। পরের মৌসুমে একই দলের হয়েই খেলেন। ২০১৮ সালে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে খেলেন তিনি। মাঝখানে দুই মৌসুম খেলেননি।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন

প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ৯৮৫১৬২০, ৮৮৩২৬৪-৬, ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৯৮৯৩২৯৫। ই-মেইল : e-mail: [email protected], [email protected]
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।