রোববার ১৬ মে ২০২১ ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

ফোর্বসের প্রতিবেদনে মেসেঞ্জার নিয়ে ‘ভয়াবহ’ তথ্য
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২১, ১:২০ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

নিজেদের গোপনীয়তার নীতিমালায় পরিবর্তন আনার ঘোষণা দেওয়ার পর থেকেই বিপদে আছে মেসেজিং অ্যাপ হোয়াটসঅ্যাপ। এর মধ্যেই এবার মেসেঞ্জার নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে। কিন্তু হোয়াটসঅ্যাপ থেকে মেসেঞ্জারকে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে উল্লেখ করছেন বিশেষজ্ঞরা।   

হোয়াটসঅ্যাপের চেয়েও ফেসবুকের মেসেঞ্জার বেশি ঝুঁকিপূর্ণ- এ সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য নিয়ে ১৬ জানুয়ারি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত ম্যাগাজিন ফোর্বস।  

ফোর্বসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেসেঞ্জার ব্যবহারকারীরা ‘ফ্রি’ সেবা পেলেও গোপনে তাদের বিভিন্ন তথ্য নিয়ে বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হচ্ছে ফেসবুক। এসব তথ্যকে পুঁজি করে নিজেদের ব্যবসাও বড় করছে ফেসবুক। ফেসবুক ও মেসেঞ্জারে আমরা যা কিছু করছি, তার সবই তারা নিজেদের বাণিজ্যিক প্রয়োজনে ব্যবহার করছে। 

তবে বরাবরের মতোই গোপনীয়তা লঙ্ঘনের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্টটি। তবে, ব্যবহারকারীর মধ্যে ব্যক্তিগত বার্তা পর্যবেক্ষণ করার বিষয়টি স্বীকার করেছে ফেসবুক।

প্রাইভেসি পলিসি নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ আলোচনায় আসার পর লাখ লাখ গ্রাহক বিকল্প অ্যাপ সিগনাল, বিপ ও টেলিগ্রামে চলে যাচ্ছেন। এর জের ধরে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ফেসবুকের নানা অনিয়ম নিয়ে জোরালোভাবে তথ্য-প্রতিবেদন প্রকাশ হচ্ছে।

হোয়াটসঅ্যাপ চলমান বিপর্যয় সামলাতে না পারলে এর নেতিবাচক প্রভাব নিশ্চিতভাবেই ফেসবুকের মেসেঞ্জারের ওপরও পড়বে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন

প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ৯৮৫১৬২০, ৮৮৩২৬৪-৬, ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৯৮৯৩২৯৫। ই-মেইল : e-mail: [email protected], [email protected]
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।