সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১ ২৯ চৈত্র ১৪২৭

শিগগিরই ফিরছেন ইথিওপিয়ায় আটকেপড়া পোশাক শ্রমিকরা
জোনায়েদ মানসুর
প্রকাশ: সোমবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২০, ৯:১৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

শিগগিরই ফিরছেন ইথিওপিয়ায় আটকেপড়া পোশাক শ্রমিকরা

শিগগিরই ফিরছেন ইথিওপিয়ায় আটকেপড়া পোশাক শ্রমিকরা

ইথিওপিয়ার সংঘাত কবলিত টাইগ্রে অঞ্চলে বাংলাদেশি ডিবিএল গ্রুপের পিএলসি কোম্পানির আটকেপড়া ১০২ পোশাকশ্রমিক নিরাপদে আছেন। তারা  সেখানকার একটি হোটেলে অবস্থান করছেন। ডিবিএল গ্রুপের পিএলসি কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. আব্দুল জব্বার গতকাল স্বদেশ প্রতিদিনকে জানান, খুব শিগগিরই আটকেপড়া শ্রমিকদের দেশে ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা করছেন তারা। এ জন্য গতকাল সোমবার সকাল থেকে কোভিড-১৯ টেস্টের জন্য প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। টেস্টে নেগেটিভ হলে ফ্লাইট ঠিকমতো পেলে দ্রুত দেশে আনা সম্ভব হবে। 

গত শনিবার ইথিওপিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় টাইগ্রেতে ভয়াবহ বোমা হামলা চালানো হয়। ডিবিএল গ্রুপের পিএলসি কোম্পানি জানায়, ‘ট্রাইগ্রে অঞ্চলে তাদের পোশাক কারখানা চত্বরে বোমা ফেলা হয়েছে এবং ওই অঞ্চল ছেড়ে যাওয়ার জন্য শ্রমিকদের সহায়তার প্রয়োজন পড়লে ডিবিএল প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করলে তারা সহযোগিতা করেন। টাইগ্রে অঞ্চলের এখনো অস্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে। সহিংসতা যে কোনো সময় আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটিতে প্রায় দুই হাজার শ্রমিক কর্মরত। এর মধ্যে ১০২ জন সেখানে আটকা পড়ে। তাদের সঙ্গে শ্রীলংকার দুই শ্রমিক রয়েছেন। ঘটনার পর দেশটির বাংলাদেশ দূতাবাসের সহযোগিতায় শ্রমিকদের একটি হোটেলে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। 

সরকারের সহযোগিতার কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইথিওপিয়ার সংঘাত কবলিত টাইগ্রে অঞ্চলে আটকে শ্রমিককে অন্যত্র সরিয়ে নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানালে সরকার দ্রুত পদক্ষেপ নেয় বলেও জানান তিনি।  ইথিওপিয়ায় বাংলাদেশ মিশনে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত নজরুল ইসলাম বলেন, দূতাবাস পরিস্থিতি নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করছে। ইথিওপিয়ায় আটকা পড়া শ্রমিকদের সরিয়ে নেওয়ার জন্য তারা বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তাদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন।

ডিবিএল গ্রুপ : ইথিওপিয়ায় নিটওয়্যার কারখানা স্থাপন করেছে ডিবিএল গ্রুপ। এটি সেখানকার তৈরি পোশাক রফতানিতে একটি শীর্ষ স্থানীয় প্রতিষ্ঠান। আফ্রিকার দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে পণ্য রফতানি করতে শুল্ক ছাড় দেওয়া হয়। সেই সুবিধা পাওয়ার জন্য ৭৫ হেক্টর জমির ওপর খুলেছে ডিবিএলের কারখানা। সুইডেনভিত্তিক খুচরা বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান এইচ অ্যান্ড এম ডিবিএলকে প্রথমে ইথিওপিয়ায় নিয়ে যায়। সেখানে বাংলাদেশের চেয়ে কম মজুরিতে শ্রমিক পাওয়া যায়। এটি ২০১৮ সাল থেকে অপারেশনে গিয়েছে। আফ্রিকার দেশগুলো যেমন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে শুল্কমুক্ত পণ্য রফতানি সুবিধা পায়, বাংলাদেশ এখন আর সেই সুযোগ পায় না। বাংলাদেশের জন্য ২০১৩ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্র এই সুবিধা জিপিএস (জেনারেলাইজড সিস্টেম অব প্রিফারেন্সেস) স্থগিত রেখেছে। বাংলাদেশেও বিভিন্ন স্থানে কারখানা রয়েছে ডিবিএল গ্রুপের। এতে কমপক্ষে প্রায় ৩৮ হাজার পোশাকশ্রমিক রয়েছেন।  ১৯৯১ সালে ঢাকার ১০২ গ্রিন রোডে ছোট কারখানা দিয়ে শুরু করা সেই প্রতিষ্ঠানটি আজকের দুলাল ব্রাদার্স লিমিটেড বা ডিবিএল গ্রুপ। পোশাক দিয়ে শুরু হলেও গত ৩০ বছরের ব্যবধানে ব্যবসায় সিরামিক টাইলস, তথ্যপ্রযুক্তি, টেলিযোগাযোগ ও ড্রেজিং ব্যবসায় নাম লিখিয়েছে ডিবিএল গ্রুপ। সব মিলিয়ে গ্রুপটির বিনিয়োগের পরিমাণ প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকা। আর গ্রুপটির সেই চার ভাই হলেন আবদুল ওয়াহেদ, এম এ জব্বার, এম এ রহিম ও এম এ কাদের। তারা যথাক্রমে ডিবিএল গ্রুপের চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি), ভাইস চেয়ারম্যান ও উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (ডিএমডি)।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন

প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ৯৮৫১৬২০, ৮৮৩২৬৪-৬, ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৯৮৯৩২৯৫। ই-মেইল : e-mail: [email protected], [email protected]
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।