শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০ ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

একই পরিবারের ৪ জনকে হত্যা: আপন ভাই গ্রেফতার
জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশ: শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০, ৫:৩২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় একই পরিবারের ৪ জনকে হত্যার ঘটনায় নিহত শাহিনুরের ভাই রায়হানুল ইসলামকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এনে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) ভোররাতে উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলসি গ্রাম থেকে শাহাজান আলীর ছেলে হ্যাচারি মালিক শাহিনুর রহমান (৪০), তার স্ত্রী সাবিনা খাতুন (৩০), ছেলে সিয়াম হোসেন মাহি (৯) ও মেয়ে তাসনিমের (৬) লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় একই দিন রাত সাড়ে ১০টার দিকে অজ্ঞাত একটি মামলা করেন নিহত শাহিনুর রহমানের শাশুড়ি ময়না খাতুন। পরে সেই মামলাটি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) হস্তান্তর করা হয়।

এই প্রসঙ্গে সাতক্ষীরা জেলা সিআইডির পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান জানিয়েছেন, মামলাটি আমাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। কিন্তু এখনো তদন্ত শুরু করা যায়নি।

তিনি বলেন, ঘটনাটি কিন্তু ছোট নয়, বেশ চাঞ্চল্যকর। দ্রুত সময়ের মধ্যে যাতে অপরাধীকে শনাক্ত করা যায়, সে বিষয়ে আমরা চেষ্টা করবো।

এদিকে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জমি, মাদক ব্যবসা নিয়ে দ্বন্দ্ব ও পারিবারিক বিরোধ—এই তিনটি বিষয় খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

এর আগে বুধবার (১৪ অক্টোবর) রাতের কোনো এক সময়ে কলারোয়া উপজেলায় খলিশা গ্রামে বাবা-মা ও তাদের দুই সন্তানকে কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন

প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ৯৮৫১৬২০, ৮৮৩২৬৪-৬, ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৯৮৯৩২৯৫। ই-মেইল : e-mail: [email protected], [email protected]
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।