শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১০ আশ্বিন ১৪২৭

হবিগঞ্জে কৌশলে ক্রেতাদের পকেট কাটছেন পেয়াজ ব্যবসায়ীরা
দিদার এলাহী সাজু, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশ: বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩:২৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জে কৌশলে ক্রেতাদের পকেট কাটছেন পেয়াজ ব্যবসায়ীরা

হবিগঞ্জে কৌশলে ক্রেতাদের পকেট কাটছেন পেয়াজ ব্যবসায়ীরা

হবিগঞ্জে কৌশলে ক্রেতাদের পকেট কাটছেন সুযোগ সন্ধানী অসাধু পেয়াজ ব্যবসায়ীরা। শুধু তাই নয়, 'উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপানোর মত' একের দুষ অন্যের ঘাড়ে চাপাচ্ছেন পাইকারী ও খুচরা বিক্রেতা। অনুসন্ধানে এমন তথ্যই বেড়িয়ে এসেছে। এ অবস্থায় খোদ প্রশাসনকেই ভাবিয়ে তুলছে বিষয়টি।

জানা যায়, হবিগঞ্জের বাজারে  মাত্র ১ দিনের  ব্যবধানে হঠাৎ করেই বেড়ে গেছে পেয়াজের দাম। সোমবার যে পেয়াজের দাম ছিল ৪০ থেকে ৪৫ টাকা কেজি, মঙ্গলবার একই পেয়াজ বিক্রি হয়েছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায়।  

অনুসন্ধানে জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাতে কেবা-কারা হঠাৎ করেই পেয়াজের দাম বাড়ার গুজব ছড়িয়ে দেয়। এমন গুজবে  মঙ্গলবার বাজারে হুমড়ি খেয়ে পড়েন ক্রেতারা। যার প্রয়োজন ১ কেজি তিনিও কিনেন ৫ কেজি। ফলে বাজারে হঠাৎ করে অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে যায় পেয়াজের চাহিদা। এ অবস্থায় দাম বাড়িয়ে  দেন একশ্রেণীর  সুযোগসন্ধানী অসাধু ব্যবসায়ী। 

হবিগঞ্জ শহরের চৌধুরী বাজারের ব্যবসায়ী আঃ কাইয়ূম জানান, যে পেয়াজ ১দিন আগেও ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে, সেই পেয়াজ মঙ্গলবার ৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। 

তিনি জানান, তাদের কিছুই করার নেই। বেশি দামে কিনতে হয়, তাই বেচতে হয় বেশী।  

তবে শহরের ঐতিহ্যবাহী শরীফ স্টোরের ম্যানেজার দ্বীন মোহাম্মদ লিটন জানান, তারা বিক্রি করছেন ৬৫ টাকা দরে।

চৌধুরী বাজারের খুচরা ব্যবসায়ী জামাল মিয়া ও মিনহাজ উদ্দিন জানান, তারা পাইকারী দোকানদারদের কাজ থেকে ৬৫ টাকা দরে ক্রয় করে ৭০ টাকায় বিক্রি করছেন।  

তাদের অভিযোগ, ৬৫ টাকা দিয়ে কিনলেও তাদের রশিদ দেয়া হয় ৪৫ টাকার। বাধ্য হয়ে এ ভাবেই তাদের কিনতে হয়।  

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে শহরের নারিকেল হাটার মেসার্স রকি এন্টার প্রাইজের স্বত্তাধিকারী পাইকারী ব্যবসায়ী আজিজুর রহমান রকি জানান, ভারতীয় পেয়াজ আমদানী বন্ধ হওয়ায় বাজারে সরবরাহ কমেছে, পাশাপাশি বেড়েছে চাহিদা। ফলে কোথাও কোথাও দাম কিছুটা হেরফের হতে পারে।  তবে খুচরা ব্যবসায়ীরা মিথ্যে বলছে, এটা তাদের কৌশল। 

তিনি জানান, মঙ্গলবার পর্যন্ত তারা ৪৫ টাকা কেজি দরেই বিক্রি করেছেন।

জানতে চাইলে হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান জানান, অভিযোগ গুলো তিনি শুনেছেন। বিষয়টি নিয়ে  ভাবছেন তিনি। এ লক্ষে আজ তার কার্যালয়ে ব্যবসায়ীদের  সাথে বৈঠক করবেন। 

তিনি জানান, অনিয়ম করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। প্রয়োজনে  ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে নামানো হবে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »



সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন

প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ৯৮৫১৬২০, ৮৮৩২৬৪-৬, ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৯৮৯৩২৯৫। ই-মেইল : e-mail: [email protected], [email protected]
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।