বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ ২০ শ্রাবণ ১৪২৭

চাঁদপুরে ৪০ টি গ্রামে ঈদ উদযাপন
বোরহান উদ্দিন ডালিম, চাঁদপুর প্রতিনিধি
প্রকাশ: শুক্রবার, ৩১ জুলাই, ২০২০, ১১:৩৫ এএম আপডেট: ৩১.০৭.২০২০ ৪:৩৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

চাঁদপুরে ৪০ টি গ্রামে ঈদ উদযাপন

চাঁদপুরে ৪০ টি গ্রামে ঈদ উদযাপন


সৌদিআরব সহ পৃথিবীর বেশ কিছু দেশে শুক্রবার  ঈদুল আযহা  উদযাপিত হয়েছে।  

চাঁদপুর জেলার ৪০ টি গ্রামে সৌদিআরবের সাথে মিল রেখে রোজা রেখে ঈদুল ফিতর এবং ঈদুল আযহা ও কোরবানি দিয়ে থাকে।                                 
শুক্রবার  চাঁদপুরের ৪০ টি গ্রামে পালিত হয়েছে মুসলমানদের পবিত্র এই ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযহা ।  বৃহস্পতিবার পবিত্র হজ্জ পালিত হয়েছে । সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে এসব  গ্রামের বাসিন্দারা এই উৎসব পালন করছেন। এই উৎসবে শামিল হওয়ারা বিভিন্ন পীরের অনুসারী। পীরের নির্দেশেই দীর্ঘ দিন ধরে এই উৎসবে পালন করে আসছেন তারা।

চাঁদপুরের ৪০ গ্রামের বাসিন্দারা চট্টগ্রামের সাতকানিয়া মির্জাখীল দরবার শরীফ ও হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা দরবার শরীফের অনুসারী। হাজিগন্জের সাদ্রা  দরবারের বর্তমান পীর মাওলানা আবু জোফার আব্দুল হাই জানান, এই দরবারের প্রতিষ্ঠাতা পীর মাওলানা ইসহাক একদিন আগে ধর্মীয় উৎসব পালনের রেওয়াজ চালু করেন।

শুক্রবার  ঈদ উদযাপিত হওয়া চাঁদপুরের গ্রামগুলোর মধ্যে রয়েছে হাজীগঞ্জ উপজেলার বলাখাল, শ্রীপুর, মনিহার, বরকুল, অলীপুর, বেলচোঁ, রাজারগাঁও, জাকনি, কালচোঁ, মেনাপুর, ফরিদগঞ্জ উপজেলার শাচনমেঘ, খিলা, উভারামপুর, পাইকপাড়া, বিঘা, উটতলী, বালিথুবা, শোল্লা, রূপসা, বাশারা, গোয়ালভাওর, কড়ইতলী, নয়ারহাট, মতলব উত্তর উপজেলার    পাঁচআনী, বাহেরচর পাঁচআনী, দেওয়ানকান্দি,   লতরদি, মাথাভাঙ্গা,  আমিয়াপুর     , নায়েরগাঁও, বেলতলীসহ কচুয়া ও শাহরাস্তির বেশ কয়েকটি গ্রামে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।    

জানা গেছে, ১৯২৮ সালে হাজীগঞ্জ রামচন্দ্রপুর মাদ্রাসার তৎকালীন অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক আরব দেশগুলোর সঙ্গে মিল রেখে ঈদ উদযাপনের উদ্যোগ নেন। কিন্তু স্থানীয়দের অসহযোগিতার মুখে তা ভেস্তে যায়। সরকারি নিয়মের বাইরে গিয়ে একদিন আগে ঈদ পালনের উদ্যোগ নেওয়ায় অধ্যক্ষের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয় তাকে। ওই বছরই নিজ গ্রাম সাদ্রায় ফিরে আসেন তিনি।  

ধনী ও প্রভাবশালী পরিবারের সন্তান মাওলানা ইসহাক ওই বছরই নিজ গ্রামে ফিরে একই উদ্যোগ নিয়ে গণসংযোগ শুরু করেন। গ্রামের অসহায় ও দুঃস্থদের আর্থিক সাহায্য দিয়ে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঈদসহ সব ধরনের ধর্মীয় অনুষ্ঠান উদযাপন প্রথা চালু করেন। পরে তিনি দরবার শরীফ ও মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন।

সাদ্রা সিনিয়র মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মো. আবু বকর ছিদ্দিক জানিয়েছেন, ঈদের জামাত সম্পন্ন হয়েছে।

মতলব উত্তর উপজেলার দেওয়ানকান্দি গ্রামের বাসিন্দা, মতলব উত্তর প্রেসক্লাবের সভাপতি বোরহান উদ্দিন ডালিম  বলেন,  আমরা চট্টগ্রামের সাতকানিয়া মির্জাখীল দরবার শরীফের মুরিদ, আমাদের পূর্বসূরিরা মির্জাখীল দরবার শরীফ ও সৌদিআরবের সাথে মিল রেখে রোজা ও ঈদ উৎসব পালন করতো আমরাও সেই রেওয়াজ ধরে রেখেছি। শুক্রবার সকাল সাড়ে আটটায়    ঈদুল আযহা  নামাজ আদায় করি।

এছাড়া হাজিগন্জের রাজারগাঁও, ফরিদগঞ্জ, শাহারাস্তি ও মতলব উত্তর উপজেলার পাঁচআনী, দেওয়ানকান্দি ও বাহেরচর পাঁচআনী জামে মসজিদে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের নামাজ আদায় করা হয়েছে।         

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »



সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন

প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ৯৮৫১৬২০, ৮৮৩২৬৪-৬, ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৯৮৯৩২৯৫। ই-মেইল : e-mail: [email protected], [email protected]
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।