রোববার ১৬ মে ২০২১ ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

এবার ১৬০ একর ইজতেমা ময়দানে থাকবে ৮৪ খিত্তা
শেখ রাজীব হাসান, টঙ্গী
প্রকাশ: সোমবার, ৬ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ

টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে মাত্র চারদিন পরেই শুরু হচ্ছে ৫৫তম বিশ^ ইজতেমা। এবার ১৬০ একর বিস্তিত ইজতেমা ময়দানে ৮৪ খিত্তায় মুসল্লিরা অবস্থান করবেন। আগামী ১০ জানুয়ারি শুরু হয়ে ১২ জানুয়ারি রোববার আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ইজতেমার প্রথম পর্ব। এরপর ৪ দিন বিরতি দিয়ে দ্বিতীয় পর্ব ১৭ জানুয়ারি শুরু হয়ে ১৯ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে দ্বিতীয় পর্ব। ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করেই স্বেচ্ছাশ্রমে চলছে বিশ^ ইজতেমার ময়দানের শেষ প্রস্তুতির কাজ। গাজীপুর, ঢাকা ও আশপাশের এলাকা থেকে স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও তাবলিগ জামাতের সাথিরা এসব কাজ করছেন। মুসল্লিদের নিরাপত্তাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তৎপর স্থানীয় প্রশাসনও। ময়দানের পশ্চিম পাশে মুসল্লিদের তুরাগ নদী পারাপারে সেনাবাহিনী নির্মাণ করছে ভাসমান ব্রিজ। বিশ^ ইজতেমার যাবতীয় কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে।
এবার মুসল্লিদের সেবায় ৪০০টি অস্থায়ী টয়লেট নির্মাণ, ১৩টি গভীর নলকূপের মাধ্যমে সাড়ে ১৮ কিলোমিটার পাইপ প্রতিদিন ৩ কোটি ৫৪ লাখ গ্যালন সুপেয় পানি সরবরাহ করার প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। এ ছাড়া ৬০০ ড্রাম ব্লিচিং পাউডার ও ২ হাজার লিটার কেরোসিন, ৬০টি ফগার মেশিন, নদীতে ৩টি নিরাপত্তা বেষ্টনী নির্মাণ, চতুর্দিকে মুসল্লিদের চলাচলের সুবিধার্থে ৭৫০টি বৈদ্যুতিক বাতির সংযোগ কাজও চলছে বেশ জোরেসোরে। ইজতেমা ময়দানে আগত বিদেশি মেহমানদের রান্নার কাজে ব্যবহারে ১৭৫টি গ্যাসের চুলা স্থাপন করা হয়েছে এবং তা সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হচ্ছে। জিসিসি কন্ট্রোলরুম ও ময়দানে ৬টি টেলিফোন সেট ও ২টি হট লাইন সংযোগ দেওয়ার জন্য বিটিসিএলের মাধ্যমে ইতিমধ্যে কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। মুসল্লিদের চিকিৎসার জন্য ৪৫টি ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। বিদেশি ডিজাইনকৃত ৫০০টি সড়ক বাতি ও ১০১টি ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। লাখ লাখ ঘনফুট বালি দ্বারা ইজতেমা ময়দান প্রশস্ত করা হয়েছে। ময়দানের চারপাশে অবস্থিত ৩ তলাবিশিষ্ট ৩০টি টয়লেট কমপ্লেক্স চুনকাম করাসহ নানা ধরনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এদিকে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গাজীপুর সিটি করপোরেশন, সেনাবাহিনী, পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে।
 গাজীপুর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে, ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চৌরাস্তা পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও রাস্তার ওপর রাখা গাড়ি সরানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তুরাগ নদীতে নিরাপত্তার জন্য টঙ্গী ব্রিজ ও কামারপাড়া ব্রিজের নিচে নৌযান চলাচল বন্ধ রাখার জন্য বাঁশ দ্বারা ৩টি নিরাপত্তা বেষ্টনি নির্মাণ করা হয়েছে। আশপাশের সিনেমা হলগুলো বন্ধ রাখা এবং রাস্তার পাশে লাগানো অশ্লীল পোস্টার লাগানো বন্ধের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়া গত বৃহস্পতিবার গাজীপুর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে ইজতেমার ১নং গেটে সর্বশেষ প্রস্তুতি নিয়ে ফলোআপ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ইজতেমার প্রস্তুতি বিষয়ে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আনোয়ার হোসেন বলেন, ইজতেমা উপলক্ষে প্রথম পর্বে ৮ হাজার পুলিশ বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। ইজতেমা ময়দানের প্রতিটি গেটে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে। ইজতেমা ময়দানের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চারপাশে স্থাপিত র‌্যাবের ১০টি ও পুলিশের ১৪টি ওয়াচ টাওয়ার থেকে সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করা হবে।
গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম মুসল্লিদের সার্বিক নিরাপত্তা ও সেবা নিশ্চিতকরণ বিষয়ে বলেন, এছাড়া মুসল্লিদের চলাচলে সুবিধার্থে ধুলাবালি নিয়ন্ত্রণে গাড়ির মাধ্যমে পানি ছিটানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের সুবিধার্থে যদি আরও কোনো ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজন হয় আমরা নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করব। আশা রাখি সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে বিশ^ ইজতেমা সম্পন্ন হবে।

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন

প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।
ফোন: ৯৮৫১৬২০, ৮৮৩২৬৪-৬, ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৯৮৯৩২৯৫। ই-মেইল : e-mail: [email protected], [email protected]
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি: বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ওয়াকিল উদ্দিন
সম্পাদক: রফিকুল ইসলাম রতন
প্রকাশক: স্বদেশ গ্লোবাল মিডিয়া লিমিটেড-এর পক্ষে মোঃ মজিবুর রহমান চৌধুরী কর্তৃক আবরন প্রিন্টার্স,
মতিঝিল ঢাকা থেকে মুদ্রিত ও ১০, তাহের টাওয়ার, গুলশান সার্কেল-২ থেকে প্রকাশিত।